পুরুষদের বলছিঃ বুদ্ধি প্যান্টের ভেতরে নয়, মাথায় রাখুন।

jedin purushera

এই মাতৃভূমি লোকালের ঘটনাটা চরম পুরুষ বিদ্বেষের বহি:প্রকাশই বলা চলে।

**সমাজে অতীব শিক্ষিত মেয়েরা দাবি করে ছেলে মেয়ে সমান সমান, অধিকারও সমান। তাহলে মেয়েদের জন্যে ট্রেনে সংরক্ষণ থাকলে ছেলেদের জন্যে নয় কেন ?
**মেয়েদের কামরায় ছেলেরা উঠলে দোষ, তাহলে জেনারেল কামরায় মেয়েরা কেন ?
**বাসে মেয়েদের সিটে ছেলেরা বসলে চলবেনা, কিন্তু ছেলেদের জন্যে সিট রাখা হয়না কেন ?
**মেয়েদের জন্যে কণ্যাশ্রী, ছেলেদের জন্যে পুত্রশ্রী নয় কেন ?
ছেলেরা কি বাণের জলে ভেসে এসেছে ?

অথচ কণ্যাশ্রীর টাকাটা মেয়েদের থেকে থেকে ছেলেদের দরকার বেশি; কারণ মেয়ে তো বিয়ের পর স্বামীর ঘাড়ে বসে খাবে। রাজ্যের যা অবস্থা ছেলেটা যদি চাকরি না পায়, তখন টাকাটা মূলধণ করে একটা ব্যবসাও শুরু করতে পারে।

আসলে একাংশের নারী লোলুপ পুরুষেরাই নারীর মন পাওয়ার আশায় নারীদের পক্ষে আইন বানায়।
নারী না চাইতেই তাঁরা নারীদের সাহাজ করার জন্য অজথা এগিয়ে আসে। এর ফলে স্বাভাবিক ভাবেই নারীরা স্বেচ্ছাচারিতার সুযোগ পায়। এই সকল পুরুষেরাই পুরুষ বিদ্বেষী মনোভাবের জন্ম দেয় !

সুতরাং যেদিন পুরুষেরা বুদ্ধি প্যান্টের ভেতর থেকে বার করে মাথায় রাখবে, সেদিন মাতৃভূমি স্পেশালে তিনটি কামড়া সাধারনের জন্য নির্ধারিত হবে !

আপনার মূল্যবান মতামত কাম্য !

[ বিঃ দ্র : ফেসবুকের নিয়ম অনুসারে
সামাজিক অবক্ষয় দমনে বাঙালি পেইজ এর
পোস্ট এ নিয়মিত লাইক, কমেন্ট
না করলে ধীরে ধীরে পোস্ট আর
দেখতে পাবেন
না।। তাই পোস্ট ভাল
লাগলে লাইক দিয়ে পেজে একটিভ থাকুন ]

Leave a Comment

*